follow us at instagram
Monday, April 06, 2020

সময়ের সাথে চলা আমাদের ফ্যাশন ও স্টাইল

ফ্যাশন নির্দিষ্ট কোন সময়ে আবদ্ধ থাকে না আর ট্রেন্ড একটা জোয়ারের মতোন। কয়েকমাস পরপর বদল হতে থাকে। কখনোও বা ট্রেন্ডিংএর স্থায়ীত্ব বেশী হয় এই যা।
https://taramonbd.com/wp-content/uploads/2019/08/fff.png

একটা মাঝারি হ্যাবারশেক ব্যাগ, ল্যাপটপ ক্যারিং ব্যাগ ,কেডস, জিন্স-টপস –সানগ্লাস এই হচ্ছে আমার সাজসজ্জা। আমি কিন্তু যে কোন উৎসবে স্লিভ্লেস ব্লাউজ দিয়ে স্রুপাড়ের একরঙা শাড়ি পরতে আর কপালে ঢাউস লাল টিপ পরতে আর চোখে কাজল পরতে খুব পছন্দ করি। এটা আমার ফ্যাশন। তবে অন্য কেউ যে এমনটা পছন্দ করবে এমনটা নয়। ফ্যাশন-ট্রেন্ডিং মানেই বৈচিত্যময়তা। ফ্যাশন মানে আদতেই কারো কাছে ব্যক্তিগত রুচিবোধের প্রকাশ আবার  কারো কাছে নিজের সৌন্দর্যের প্রকাশ। ফ্যাশন নির্দিষ্ট কোন সময়ে আবদ্ধ থাকে না আর ট্রেন্ড একটা জোয়ারের মতোন। কয়েকমাস পরপর বদল হতে থাকে। কখনোও বা ট্রেন্ডিংএর স্থায়ীত্ব বেশী হয় এই যা।

ঋতু বদলের সাথে সাথে বদলে যায় লাইফস্টাইল। বদলে যায় ট্রেণ্ড।

এখনকার দেশী ফ্যাশন ট্রেন্ড কিন্তু ষাট দশককে মনে করিয়ে দেয় অনেকাংশেই। বিশেষত মেয়েদের পোশাকে ড্রেস কাটগুলো যেমন ফ্রিল দেয়া স্লিভ ,স্লিভলেস ,বেল বটোম পালাজ্জো বা ডিভাইডার, প্যান্টকাট শর্ট সালোয়ার, শর্ট কামিজ, স্রাগ, গোগলস প্যাটার্ণ একেবারেই ষাটের দশকের ফ্যাশনের আদলে। মেয়েরা ড্রেসের সাথে মিলিয়ে কনভার্স নয়তো ফ্ল্যাট স্যান্ডেল পরছে। সামার ট্রেন্ডিং টিন-এইজ থেকে শুরু করে বয়স্ক সবাই ইনফরমাল ক্যাজুয়াল আউটফিট হিসাবে শর্টপ্যান্ট, টি-শার্ট, আর ফরমাল আউটলুকে ফরমাল-জিন্স-গ্যাবাডিন প্যান্ট, সেকেণ্ডারী কালারের রাউন্ড শেপ হাইনেক কলার আরহাইড বাটন শার্ট বেশ পরছে। ছেলেরা কনভার্স, স্নিকার, লোফার,ক্যাজুয়াল সু পরছে ।

অনলাইন শপিং সুবিধাজনক হওয়ায় ওয়ার্ল্ড –ওয়াইড ফ্যাশনের প্রভাব এখন ঘরেঘরে। যা ফ্যাশন-ট্রেন্ডিংএ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। ইন্ডিয়ান-চাইনিজ-জাপানিজ-কোরিয়ান-ইরানী ফ্যাশন শুধু নিজদেশের গ্ণ্ডির মধ্যেই আবদ্ধ নেই আমাদের দেশীয় ফ্যাশন ট্রেন্ডিং এ বড় একটা জায়গা দখল করে আছে। অনেকে মেয়েরাই ইন্ডিয়ান কালামকারি কুর্তি পরছে , মুসলিম নারীরা পরছে ইরানী ফ্যাশনের অনুকরণে পছে হিজাব আর আবায়াকিং বা গাউন টাইপ ফ্রক। অফিস গোয়িং মেয়েরা ফ্যাশনে রয়েছে জিন্স-ফরমাল প্যান্ট-টপস –কুর্তি-স্রাগ আর স্কার্ফ। আবার দেশীয় হ্যান্ডলুম, মলমল কটনের সাদামাটা শাড়ির সাথে প্রিন্টেড ব্লাউজ বেশ আকর্ষনীয় ট্রেণ্ড। একই সাথে  হ্যান্ডপেইণ্টেড, ডিজিটাল ফ্লোরাল প্রিণ্টেড মসলিন -টিস্যু শাড়ী, ভেজিটেবলটাই-ডাই কটন শাড়ি ট্রেণ্ডিং এ বেশ এগিয়ে।

নারীরা অনেকেই শাড়ির সাথে ম্যাচিং না করে ভিন্ন রঙের টপস ব্যবহার করছেন ব্লাউজের পরিবর্তে যা খুবই ফ্যাশনেবল।

এমন কি জিন্স আর ক্রপ টপের সাথেও শাড়ি পরছেন অনেকেই যা ফ্যাশনে নতুন যোগ। ইদানিং এক্সেসরিজের ক্ষেত্রে রুপার এবং এণ্টিক গোল্ডপ্লেটেড গহনা বেশ জনপ্রিয় ট্রেণ্ড। ডিজাইনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রঙের জয়পুরী কুন্দন –পাথরের গহনা পছন্দের শীর্ষেই বলা যায়। বেশ কিছু দিন যাবত কপালের টিপের ডিজাইনেও নতুন ট্রেণ্ড শুরু হয়েছে। টিপের বেইজ কালারের উপর এন্টিক-সিল্ভার মেটালের নকশা করা কাজ দেখা যাচ্ছে। এমনকি বিভিন্ন রকম আল্পনা করা টিপ শাড়ির সাথে কনটেম্পরারি ট্রেণ্ড হিসেবে চলছে।

এসবের পাশাপাশি ওয়ার্ল্ড-ওয়াইড স্পোর্টস এবং ভিজ্যুয়াল মিডিয়া ইডাস্ট্রি ফ্যাশন ট্রেন্ডিং এ অনেক বড় ভূমিকা পালন করছে। হলিউড –বলিউড-মালায়লাম-টালিউড-ঢালিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা-অভিনেত্রীর অনুকরণে নারী-পুরুষ অনেকেই হুবহু নিজেদের ড্রেস তৈরি করছেন কিংবা হেয়ার স্টাইল ফলো করছেন। বিশেষ করে মেয়েদের হেয়ারস্টাইলে এখন ট্রেণ্ড হলো রিবন্ডিং এবং হেয়ার কালার। এমন কি হিন্দী টেলিভিশন সিরিয়াল যেমন স্টারপ্লাস –স্টারজলসার ড্রেস হুবহু কপি করছে শহর কিংবা মফস্বলের টিনএইজ মেয়েরা। তবে দেশী দশ যেমনসাদা-কালো, রঙ,বিবিয়ানা, কে-ক্রাফট বা আড়ং, যাত্রা কিংবা অরণ্যের মতো ব্র্যাণ্ডগুলো দেশীয় মোটিফের সাথে প্রাচ্য-পাশ্চাত্য ফিউশনে পোশাক তৈরি করছে যা ট্রেণ্ডি পোশাক হিসেবে এখন অনেক জনপ্রিয়।

ইদানিং ট্রেন্ডিং এ নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে তা হলো পোশাকের রঙে। দেখা যাচ্ছে দিবস অনুযায়ী রঙ অনেক মুখ্য ভূমিকা পালন করছে। একুশে ফেব্রুয়ারিতে সাদা-কালো, বিজয় দিবসে সবুজ-লাল,পহেলা বৈশাখে সাদা-লাল রঙ বসন্তে  হলুদ-লাল, ভালোবাসা দিবসে লাল-নীলরঙের পোশাকের আধিক্য অনেক বেশী।

আদিম যুগে গাছের বাকল থেকে যে পোশাক তৈরি হতো লজ্জা নিবারণের জন্য কালের বিবর্তনে তাতে এখন যোগ হয়েছে নতুন নতুন আইডিয়া। ফ্যাশন ট্রেণ্ডিং এ এখন আর ভোগোলিক বলয়ের কোন সীমাবদ্ধতা নেই। দেশ-কাল-পাত্র ছাপিয়ে হয়ে উঠেছে ফ্যাশন-ট্রেন্ডিং  হয়ে উঠেছে বৈশ্বিক ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *