follow us at instagram
Thursday, April 09, 2020

ছুটিতে পাহাড়ের গায়ে হারিয়ে যেতে ‘হাইকিং’ দেবে কাজের প্রেরণা

সফল ও রোমাঞ্চকর হাইকিং এর জন্য অবশ্যই আগে থেকে সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে
https://taramonbd.com/wp-content/uploads/2020/01/1080x720-blank-hi1.jpg

কবে যাব পাহাড়ে, আহারে।
পাহাড় নাম শুনলেই হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করে সবুজের মাঝে। প্রকৃতির আদিম সৌন্দর্যের হাতছানি উপেক্ষা করা অসম্ভব। তবে পাহাড়ের এই রুপ দেখতে কিন্তু চাই প্রস্তুতি। আর পাহাড়ি রাস্তায় ভ্রমন মানেই হাইকিং। কিন্তু অন্যান্য ট্রিপ এর মত হাইকিং যখন ইচ্ছা তখন বললেই করা যায় না। ফিজিক্যালি ফিট হওয়া, গন্তব্য ও রাস্তা সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা রাখা। মানসিক ভাবেও দৃঢ় থাকা যেন যে কোন বিপদে নির্ভীক ও ঠাণ্ডা মাথায় সমাধান বের করতে পারেন। এরকম অনেক ব্যাপারে হাইকিং এর ক্ষেত্রে পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হয়।

শারীরিক সুস্থতাঃ
হাইকিং এর পূর্ব শর্ত হচ্ছে আপনি শারীরিক ভাবে ফিট কি না? সেটা যাচাই করে নেওয়া। আর তার জন্য হাইকিং-এর বেশ কিছুদিন আগে থেকে নিজেকে প্রস্তুত করে নিতে হবে। আপনি সাধারণ হাঁটাহাঁটি দিয়ে শুরু করতে পারেন। সপ্তাহে ৩ দিন ৩০-৪০ মিনিট হাঁটুন এবং প্রতি সপ্তাহে হাঁটার দূরত্ব বাড়িয়ে নিন।

সাথে আপনার ব্যাকপ্যাকও রাখুন। প্রতিদিন একটু একটু করে আপনার ব্যাগ এর ওজন বাড়াতে থাকুন।
ফলে আপনি ভারী ব্যাগ নিয়ে হাঁটতে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন।

সমতল ভূমিতে না হেঁটে সিঁড়ি অথবা অন্য কোন উঁচু জায়গা ব্যবহার করতে পারলে ভাল হয়। কেননা সমান জায়গায় হাঁটলে হার্টের জন্য ভালো। কিন্তু পেশীর চলাচল খুব একটা হবে না।

 

শারীরিক ফিটনেস এর পাশাপাশি ডাক্তার থেকে একটা চেকআপ করিয়ে নিবেন। যে আপনার কোন রকম সমস্যা হবে কি না হাইকিং-এ।

মানসিক স্থিতিশীলতা
হাইকিং এর আগে আপনাকে মানসিক ভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে। পাহাড়ে পাহাড়ে ঘুরার ক্ষেত্রে অনেক সময় অনেক রকম ঝামেলায় পরতে পারেন। হয়তো ঝড় বৃষ্টি বা আকস্মিক কোন দুর্ঘটনার শিকার হলেন। অথবা রাস্তা হারিয়ে ফেলেছেন। এমন সব অবস্থা আগে থেকে মাথায় রাখতে হবে। ইয়োগা করার মাধ্যমে নিজের মনস্থির করুন ও মনবল দৃঢ় করুন। যেন যে কোন দুরবস্থায় মাথা ঠাণ্ডা রেখে সঠিক ব্যবস্থা নিতে পারেন।

প্রাথমিক কিছু ইয়োগা স্টেপ দিয়ে শুরু করুন।

  • ইয়োগার জন্য আপনি আমাদের ইয়োগা সংক্রান্ত এই অনুচ্ছেদটি দেখতে পারেন।

ট্রিপের পূর্ব প্রস্তুতি

হাইকিং এর আগে আরও কিছু ব্যাপার খেয়াল রাখতে হয় যা পরবর্তীতে কাজে দিবে। আপনি কি খাবেন? কি সাথে নিবেন? আর নিরাপত্তার জন্য কি ব্যবস্থা নিচ্ছেন? সব কিছু গুছিয়ে নিতে হবে।

  • হাইকিং এর জন্য কোথায় যাচ্ছেন? সেই জায়গা সম্পর্কে আপনার পূর্ণ ধারনা থাকতে হবে।
    সব সময় টেকনোলজির উপর নির্ভর করলে হবে না ।কেননা তা সব সময় কাজ নাও করতে পারে। অবশ্যই অনলাইন ও অফলাইন ম্যাপ দুটোই আপনার সাথে থাকতে হবে। আর যেখানে যাচ্ছেন সেখানে বর্তমান অবস্থা কি সেটাও জানা থাকতে হবে।
  • হাইকিং এর পূর্ণ পরিকল্পনা বাসায় লিখে রেখে যাবেন। কোথায় যাচ্ছেন? কত দিনের জন্য যাচ্ছেন? কবে নাগাদ ফিরবেন সেই সময়টা? কোন কোন পথ দিয়ে যাচ্ছে, কোথায় যোগাযোগ করলে আপনার তথ্য পাওয়া যাবে? সব কিছু লিখে আপনার খুব পরিচিত কারো কাছে রেখে যান।
  • যে জিনিসগুলো না নিলেই নয়। যেমন ম্যাপ, সানস্ক্রিন ও ইন্সেক্ট প্রটেকশান।  টর্চ, ফার্স্টএইড, ছুরি, প্রয়োজনীয় খাবার ও পানি। এগুলোর একটি চেকলিস্ট করে নিন যেন কিছু ভুলে ফেলে চলে যেতে না হয়।
হাইকিং এর কথা শুনতে ও ভাবতে যতটা সহজ মনে হয় তা এতটা সহজ নয়। তবে সফল ও রোমাঞ্চকর হাইকিং এর জন্য অবশ্যই আগে থেকে সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *